1. ssislambd@gmail.com : admin :
  2. ronynet5@gmail.com : Dainik Bagmara : Mahfuzur Rahman
  3. mahfuzur4@gmail.com : Mahfuzur Rahman : Mahfuzur Rahman
বাগমারার যোগীপাড়ায় জোরপূর্বক পাকা ঘর নির্মাণের অভিযোগ • দৈনিক বাগমারা    
শিরোনাম :
বাগমারার মাড়িয়ায় নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী রেজাউল হকের র‌্যালি ও আলোচনা সভা বাগমারায় কৃষক লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত বাগমারায় পুলিশের অভিযানে মাদক ও ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার বাগমারা থানা পুলিশের উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি শোভাযাত্রা ও মতবিনিময় সভা বাগমারায় পুলিশের পৃথক অভিযানে ৭জন গ্রেপ্তার বাগমারায় আ’লীগের উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা বাসুপাড়ার গোপালপুর পুনঃমিলন যুবসংঘে চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুলের ফুটবল ও জার্সি প্রদান আ’লীগ নেতা রমজান আলীর মৃত্যুতে এমপি এনামুল হকের শোক প্রকাশ গনিপুরে বিভিন্ন পূজা মন্দির পরিদর্শনে চেয়ারম্যান প্রার্থী এনামুল হক বাগমারায় কাচারী কোয়ালীপাড়ায় পূজা মন্দির পরিদর্শনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোজাম্মেল হক বাগমারায় কোরআন নিয়ে কটুক্তি করায় সংঘর্ষ, রাবার বুলেট নিক্ষেপ বাগমারায় কাচারী কোয়ালীপাড়ায় মন্দির পরিদর্শনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আঃ মান্নান নরদাশ ফুটবল একাডেমী প্রিমিয়ার লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত কথিত জীনের বাদশা গ্রেপ্তার, সর্বশান্ত বাগমারার আফসার আলী বাগমারায় দূর্গাপূজা উপলক্ষে মন্দিরে এমপি এনামুল হকের আর্থিক অনুদান প্রদান




বাগমারার যোগীপাড়ায় জোরপূর্বক পাকা ঘর নির্মাণের অভিযোগ

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স
  • Update Time : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৭৪৮ Time View

প্রতিমুহুর্ত্বের খবর দ্রুত পেতে পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন

উপজেলার যোগিপাড়া ইউনিয়নের কাতিলা গ্রামের দুই সহদর কৃষকের পৈত্রিক বসতভিটা জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষরা দুই কৃষকের বসত ভিটা থেকে উচ্ছেদ করে সেখানে পাকা স্থাপনা নির্মাণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বলে দাবি করেছেন ভুক্তভোগীরা।

এ ঘটনায় কৃষক ইউনুছ আলী মৃধা ও তার ছোট ভাই রহিদুল ইসলাম মৃধা যোগিপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। তবে অভিযোগ দায়েরের পর থেকে বাদীর তিন চাচাত ভাই প্রতিপক্ষ সেকেন্দার আলী মৃধা, শাহাজাহান আলী মৃধা, ও আব্দুল মালেক মৃধা বাদীকে অভিযোগ প্রত্যাহার না করলে প্রাণনাশের হুমতি দিয়ে চলেছে বলে তারা জানান।

অভিযোগ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, বাদী রহিদুল ইসলাম মৃধা ও ইউনুছ আলী এবং প্রতিপক্ষ সেকেন্দার আলী মৃধা, শাহাজাহান আলী মৃধা ও আব্দুল মালেক মৃধা পরস্পর চাচাত ভাই। বাদীর পিতা আফজাল হোসেন মৃধা ও প্রতিপক্ষের পিতা শুকচান আলী মৃধা বিগত প্রায় একযুগ আগে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর সময় দুই ভাই নখোপাড়া বাজার সংলগ্ন পাকারাস্তার পশ্চিম পাশে বসতবাড়ি সহ ত্রিশ শতক জমি রেখে যান। যার মৌজা কাতিলা, দাগ নং ৫৪১।

এই ৩০ শতক জমির মাত্র আট শতক বাদী ইউসুফ আলী মৃধা ও রহিদুল ইসলাম মৃধার দখলে রয়েছে। অবশিষ্ট ২২ শতক জমি দখলে রেখেছেন প্রতিপক্ষ তিন ভাই সেকেন্দার আলী মৃধা, শাহাজাহান আলী মৃধা ও আব্দুল মালেক মৃধা। বর্তমানে প্রতিপক্ষ তিন ভাই তাদের দখলে থাকা ২২ শতক জমির উপর নির্মানাধীন মাটির পুরাতন ঘর ভেঙ্গে সেখানে পাকা ঘর নির্মাণের প্রস্তুতি নিয়েছেন। এ সময় ঘর নির্মাণে বাঁধা প্রদান করলে প্রতিপক্ষরা ইউসুছ আলী মৃধা ও রহিদুল ইসলাম মৃধাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় এবং তাদের সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই জায়গায় তাদের কোন জমি দেওয়া হবে না।

ইউসুছ আলী ও রহিদুল আরো জানান, ১৫ শতকের স্থলে তাদের মাত্র ৮ শতক জমি দেওয়া হয়েছে তাও আবার পিছনের দিকে। তারা পাকা রাস্তা সংলগ্ন ২২ শতক জমি জোর পূর্বক দখল করে রেখেছে। এ নিয়ে গ্রামে একাধিকবার শালীস দরবার বসলেও তারা কাউকেও পরোয়া করছে না। তারা সর্বহারা সন্ত্রাসীর ভয় দেখাচ্ছে এবং আমাদের প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলেছে। এমনকি তারা আমাদের চলাচলের রাস্তাও বন্ধ করে রেখেছে। আমরা বাস্তুভিটার এক কোনায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছি। সামান্য কিছু বললেই তারা হাসুয়া ও দা ছুরি দিয়ে আমাদের ধাওয়া করছে এবং মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিপক্ষ আব্দুল মালেক মৃধা মাটির ঘর ভেঙ্গে পাকা ঘর নির্মাণের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ওই ঘরটি আমার বড় ভাই শাহাজাহান মৃধা করার উদ্যোগে নিয়েছে। তবে এখানে জমির পরিমান নিয়ে কোন দ্বন্দ্ব নেই দাবী করে তিনি বলেন, এর আগের চেয়ারম্যান(সাইফুল ইসলাম) সহ তদন্ত কেন্দ্রের আইসিকে নিয়ে বিষয়টির মিমাংসা করা হয়েছে। আমরা সেই মত ভোগ দখল করে আছি। তবে পজিশনগত ভাবে পাকা রাস্তার সাথে তাদের দখলীয় জমির পরিমান বেশি রয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেছেন তবে অন্যান্য হুমকির বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছন।

একই গ্রামের কৃষক মোবারক হোসেন আফজাল হোসেন ও স্থানীয় নখোপাড়া বাজারের ব্যবসায়ী আমজাদ হোসেন জানান, তাদের এই বসত ভিটার ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে এর আগে একাধিক বার শালিসী বৈঠক হয়েছে। কিন্তু প্রতিপক্ষ সেকেন্দার গং রায় না মানায় সমস্যার নিরসন হয়নি। ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেন জানান, বিষয়টি আমার জানার বাইরে। তবে দুই পক্ষই আমার পরিচিত। তাদের লিখিত অভিযোগ পেলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করে দেখব। এ বিষয়ে জানতে চাইলে যোগিপাড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জন্য এসআই শহিদুলকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মুঠোফোনে শহিদুল জানান, আমি ছুটিতে আছি। দুই একদিনের মধ্যে উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে তদন্ত পূর্বক আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে পৃথক অভিযোগ করা হয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর। বর্তমানে নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্বে রয়েছে সহকারি কমিশনার(ভুমি) মাহমুদুল হাসান। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জমি সংক্রান্ত বিষয় । কাগজপত্র দেখে ও তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

প্রতিমুহুর্ত্বের খবর দ্রুত পেতে পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন




এই পোষ্টটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category










© All rights reserved © 2021 dainikbagmara.com.bd
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!